বৃহস্পতিবার ১৬ জুলাই ২০১৫। ০২ শ্রাবন ১৪২২। ২৮ রমজান ১৪৩৬
ফনেটিক ইউনিজয়
সার্চ
¦

ব্রেকিং নিউজ

১৮ জুলাই থেকে সাচার রথযাত্রা উৎসব শুরু হচ্ছে

কচুয়া ব্যুরো

প্রকাশ : ১৬ জুলাই, ২০১৫


দেশের অন্যতম প্রসিদ্ধস্থান চাঁদপুর জেলাধীন সাচার গ্রামে রয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী রথও জগন্নাথ ধাম যা সচরাচর ‘সাচারের রথ’ নামে দেশের সর্বত্রে পরিচিত। আগামী ১৮ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তম ১৪৮তম রথাযাত্রার উৎসব। রথযাত্রা উৎসবকে কেন্দ্র করে সাচার এলাকায় বিরাজ করছে ব্যাপক আনন্দ উল্লাস। ১৮জুলাই জগন্নাথ ধাম প্রাঙ্গন থেকে রথটি টেনে আনা হবে ৫শ’ গজ দূরে সাচার বাজারে। সপ্তাহ পর পালন করা হবে ফেরত রথযাত্রার উৎসব। টানা ও ফেরৎ রথযাত্রার উৎসবে হাজার হাজার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন অংশ নিবে বলে আশা করা হচ্ছে। রথযাত্রার উৎসব উপলক্ষে এ বছর ও কুঁটির জাত শিল্প সহ বিভিন্ন পন্য সামগ্রীর মেলা বসছে।
    সাচার জগন্নাথ ধাম ও পূজা ও সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি তিমির সেনগুপ্ত জানান, প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও মেলায় স্থান পাবে অন্তত ৫শ’ স্টল। এ বছর মেলার একটি নতুন বৈশিষ্ট হচ্ছে ঃ হরেক রকমের ফার্নিচারের মেলা। যা আলাদাভাবে বসছে ঃ সাচার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের পরিবর্তে জগন্নাথ ধামের দক্ষিণ পার্শ্বে বিশাল পরিসরে। এটি চলবে মাসব্যাপী। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে রথযাত্রার উৎসব পালনে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।এই রথ ও জগন্নাথ ধাম প্রতিষ্ঠা নিয়ে কথিত আছে যে, প্রায় দেড়শ’ বছর পূর্বে সাচার বাবু বাড়ির  জমিদার গঙ্গা গোবিন্দ সেন ভারতে হিন্দু তীর্থস্থান পুরীতে জগন্নাথ দর্শনে গেলে, জগন্নাথ গঙ্গা গোবিন্দকে দর্শন দেননি। বরং পুরীর দরজা-জানালা গুলো আপনা আপনি বন্ধ হয়ে যায়। দর্শন লাভে ব্যর্থ হয়ে পরম ধার্মিক গঙ্গা গোবিন্দ সেন দর্শন লাভের আশায় পুরীর বাহিরে আমরন-অনশন শুরু করে দেয়। অনশনের কয়েকদিন অতিবাহিত হলে গঙ্গা গোবিন্দ সেন স্বপ্নাদিষ্ট হন যে, এ স্থানে জগন্নাথ গঙ্গা গোবিন্দ সেনকে দর্শন না দিয়ে তাঁর সাচারের বাড়ির সম্মুখের দীঘিতে ভাঁসমান নিম কাঠ আকৃতিতে দর্শন দিবেন। স্বপ্নাদিষ্ট হয়ে গঙ্গা গোবিন্দ সেন নিজ বাড়ি ফিরে আসেন এবং ক’দিন পর উক্ত দীঘিতে স্নান করার সময় আকস্মিকভাবে ভাসমান নিম কাঠ আকৃতিতে জগন্নাথ দর্শন লাভ করেন। অলৌকিকভাবে দর্শন প্রাপ্ত এ নিম কাঠ দ্বারা জগ্ননাথ, বলরাম ও শুভদ্রা এ তিনজনের তিনটি মূর্তি তৈরি হয়। গঙ্গা গোবিন্দ সেনের নেতৃত্বে তৎকালীন বঙ্গের বিখ্যাত নির্মাতা কারিগর রামকান্ত নিম কাঠ খোদাই পদ্ধতিতে মূর্তিগুলো তৈরি করেন। বলরাম জগন্নাথের বড় ভাই এবং শুভদ্রা ছোট বোন। জগন্নাথ ধামের কাগজ সম্মূখে নিম কাঠের সাহায্যেই ১২টি চাকার উপর প্রায় ৪০ ফুট উচুঁ বিশিষ্ট অভিনব কারুকার্য খচিত রথ নির্মিত হয়। নিম কাঠে খোদাই পদ্ধতিতে বিভিন্ন আকর্ষনীয় মূর্তি তৈরি হয়। এসব মূর্তির মাঝে চুল বেঁধে রেখে বউ কে কাধে তুলে রাখা, পুরুষের প্রস্রাব পানে উদ্যত্ব যুবতী, ষাড়ের উপর গাভী চড়াও এবং মাকে ছেলে ধর্ষন করছে ইত্যাদি নিখুত মূর্তি গুলো সবিশেষ উল্লেখযোগ্য। অর্থ্যাৎ সত্য, ধাপর ক্রেতা ও কলিযুগের ঘটমান মানুষের আচরনের বিভিন্ন অংকিত স্মৃতি নিয়ে এ রথ নির্মিত হয়। ১২৭৫ বাংলা সনের ১৩ আষাঢ়ে প্রতিষ্ঠিত এ রথ ও জগন্নাথ ধামে প্রতিবছরের আষাঢ় মাসে ব্যাপক আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় রথযাত্রার উৎসব। পাকিস্তান আমলে তৎকালীন পূর্ব বঙ্গের সর্বশেষ উল্লেখযোগ্য এ সাচার রথ উৎসবে আসাম ও ত্রিপুরা রাজ্যসহ পূর্ববঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চল হতে হাজার হাজার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন এ রথযাত্রায় অংশ নিত। এ রথ যাত্রাকে ঘিরে অগনিত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের ঘটত এক মহামিলন আর মহা এ ঐতিহ্যবাহী রথটি ৭১’র মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে পাঞ্জাবীরা পুড়িয়ে নিঃশেষ করে দেয়। রথের চতুরদিকের বেষ্টনীর ক’টি পাকা উচু খুঁটি অবশিষ্ট থেকে সেই ঐতিহ্যবাহী রথের প্রতীকী স্বাক্ষর বহন করে চলছে। এখনও প্রতি আষাঢ়ে বাঁশ ও কাঠ দ্বারা রথের কাঠামো তৈরি করে পূর্বের প্রথানুযায়ী রথযাত্রার উৎসব পালিত হচ্ছে। প্রতীকি স্বাক্ষর স্থানে সরকারি উদ্যোগে পূনঃএকটি রথ নির্মাণ করে হিন্দু সম্প্রদায়ের পুরানো ঐতিহ্যকে লালনসহ রথ ও জগন্নাথ ধামকে সরকারিভাবে রক্ষনাবেক্ষণ করা।
    এদিকে আগামী ১৮ জুলাই থেকে শুরু হওয়া রথ যাত্রা উৎসবকে সফর করার লক্ষে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে ইতি মধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন করা হয়েছে। রথ যাত্রায় আনন্দ উপভোগ করতে সকল শ্রেণীর পেশার মানুষকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সাচার জগন্নাথ ধাম, পূজা ও সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি তিমির সেনগুপ্ত।
 
প্রথম পাতা পাতার আরো খবর

উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতিঃ ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু, প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশকঃ- মোঃ সেলিম খান, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ- শহীদ পাটোয়ারী, যুগ্ম সম্পাদকঃ- জাহিদুল ইসলাম রোমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালকঃ- কাজী মিজানুর রহমান, ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ- মোহাম্মদ আলী মাঝি কর্তৃক ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন, চাঁদপুর থেকে প্রকাশিত এবং সিরাজ অফসেট প্রেস, কলেজ গেইট, চাঁদপুর থেকে মুদ্রিত। কার্যালয়ঃ- খান সুপার মার্কেট (২য় তলা), ঘোষপাড়া ব্রীজের পশ্চিমে, মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী সড়ক, চাঁদপুর-৩৬০০। মোবাইল- ০১৭১২-২০৫৭৪৭।